ঢাকা, বুধবার ৫ অক্টোবর ২০২২, ১৯শে আশ্বিন ১৪২৯

‘সাধারণ জ্বরের রোগীকে ডেঙ্গু হিসেবে দেখাচ্ছে স্বাস্থ্য অধিদফতর’

নিজস্ব প্রতিবেদক : | প্রকাশের সময় : বুধবার ২৯ জুন ২০২২ ১১:১৬:০০ পূর্বাহ্ন | স্বাস্থ্য

‘ডেঙ্গু নিয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের দেওয়া তথ্যে অসংখ্য ভুল রয়েছে।  ভুল তথ্যের কারণে ডেঙ্গুবিরোধী কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে’—বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. ফজলে শামসুল কবির। তিনি আরও দাবি করেন, রাজধানীর কিছু  হাসপাতাল তথ্য  দিচ্ছে না। কোনও কোনও হাসপাতাল  স্বাস্থ্য অধিদফতরের মাধ্যমে ভুল তথ্য দিচ্ছে। এ বছর ডেঙ্গু মোকাবিলায় ডিএসসিসির পদক্ষেপের বিষয়ে জানতে মুঠোফোনে এক সাক্ষাৎকারে তিনি এ মন্তব্য করেন ।

ডা. ফজলে শামসুল কবির বলেন, স্বাস্থ্য অধিদফতর থেকে প্রতিদিন ডেঙ্গু রোগীর যে তালিকা দেওয়া হচ্ছে সে তালিকার মধ্যে আমরা অসংখ্য ভুল পাচ্ছি। ঢাকার বাইরের রোগীকে ঢাকার রোগী হিসেবে দেখানো হচ্ছে । এমনকি সাধারণ জ্বরের রোগীকে ডেঙ্গু রোগী লিখে রিপোর্টিং করা হচ্ছে। তারা যে সংখ্যায় রোগী দেখাচ্ছে বাস্তবে রোগীর সংখ্যা তার চেয়ে কম।

তিনি আরও বলেন, আমরা নিজেরা হাসপাতালে যোগাযোগ করছি কিন্তু হাসপাতালগুলো আমাদের সঠিক তথ্য দিচ্ছে না । সবচেয়ে বেশি ভুল তথ্য দিচ্ছে মুগদা হাসপাতাল। আমাদের জন্য রোগীর ঠিকানা খুবই জরুরি । কারণ আমরা ঠিকানা ধরে বিশেষ চিরুনি অভিযান পরিচালনা করি। কিন্তু স্বাস্থ্য অধিদফতরের দেওয়া ভুল ঠিকানার কারণে পদে পদে বিঘ্ন সৃষ্টি হচ্ছে।

স্বাস্থ্য অধিদফতরের তথ্য মতে, ঢাকাসহ সারাদেশে জুন মাসের শুরু থেকেই রোগী বাড়ছে। গত জানুয়ারিতে রোগী ছিল ১২৬ জন, ফেব্রুয়ারিতে ২০, মার্চে ২০ জন, এপ্রিলে ২৩, মে মাসে ১৬৩ এবং জুনের ২৭ দিনে মোট রোগী দাঁড়িয়েছে ৬১৭ জনে।

ডিএসসিসির গৃহীত পদক্ষেপের বিষয়ে তিনি বলেন, আমরা আমাদের ওয়ার্ডগুলোতে আমরা সচেতনতা তৈরিতে কাজ করছি। বিভিন্নভাবে কাজ করছি মাইকিং হচ্ছে, পোস্টার-লিফলেট বিতরণ হচ্ছে। মসজিদে, পাড়া-মহল্লায় প্রচারণা চলছে। ইতোমধ্যে, আমাদের মেয়র বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষের সঙ্গে সভা করেছেন। একইসঙ্গে আমাদের নিয়মিত লার্ভিসাইডিং, ফগিং কার্যক্রম চালাচ্ছি। আমরা প্রতিটি অঞ্চলে অ্যাডভোকেসি সভা করেছি । মশককর্মীদের এডিসের ওপর বিশেষ ট্রেনিং দেওয়া হয়েছে।

ডা. শামসুল কবির বলেন, আমাদের সব তৎপরতা চলছে। ১৫ জুন থেকে মোবাইল কোর্ট শুরু করেছি। আগামী একবছর চলার মতো কীটনাশক মজুত আছে।

সাধারণ জ্বরের রোগী ডেঙ্গু রোগী দেখানো ও ভুল ঠিকানা দেওয়ার অভিযোগের বিষয়ে স্বাস্থ্য অধিদফতরের রোগ নিয়ন্ত্রণ (সংক্রামক) শাখার পরিচালক অধ্যাপক নাজমুল ইসলাম বলেন, ‘ডেঙ্গু রোগী সরকারি হাসপাতালে যেভাবে ভর্তি করা হয় সেখানে ডেঙ্গু পরীক্ষা নিশ্চিত হয়েই কেবল ডেঙ্গু বলা হয়। সাধারণ জ্বরের রোগীকে ডেঙ্গু রোগী বলার কোনও সুযোগ নাই।’

তিনি অরও বলেন, ‘স্বাস্থ্য অধিদফতরের এমআইএস যে তালিকা দেয় সেটা রোগীদেরই সরবরাহ করা । রোগীর নাম, বয়স, ঠিকানা এগুলো রোগীদের দেওয়া। রোগীর দেওয়া ঠিকানা সঠিক না ভুল এটা অধিদফতরে বসে যাচাই করার সুযোগ নেই’

তিনি বলেন, ডেঙ্গু রোগীর বিষয়ে যদি কোনও কনফিউশন থাকে সিটি করপোরেশন হাসপাতালে তাদের প্রতিনিধি পাঠিয়ে যাচাই করতে পারে।

মুগদা মেডিকেল হাসপাতালের পরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) নিয়ামত উল্লাহ বলেন, ‘ডেঙ্গু রোগীর তথ্য না পেলে তারা আমাদের ফোন দিতে পারতো। উনি চিঠি পাঠিয়েছেন। চিঠি দিয়ে তো বাংলাদেশে সব সমস্যার সমাধান হয় না।’

তিনি দাবি করেন, হাসপাতাল থেকে স্বাস্থ্য অধিদফতর ও সিটি করপোরেশনে নিয়মিত ইমেইল যোগে তথ্য পাঠানো হয়। তিনি বলেন, আমরা ভুল তথ্য দেবো কেন? আমাদের লাভ কী? রোগীরা যদি তথ্য দেয়  বাসা যাত্রাবাড়ী আমি কিভাবে জানবো তার বাসায় আসলে কোথায়?