এই মাত্র পাওয়া :

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১

ভৈরবে টানা ৪০ দিন জামাতে নামায পড়ায় বাইসাইকেল উপহার পেল তারা

বিভাগ : ধর্ম প্রকাশের সময় :২১ মে, ২০২১ ৭:১৭ : অপরাহ্ণ

ভৈরব প্রতিনিধি:

‘এসো নামায পড়ি, আল কুরআনে সমাজ গড়ি’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে কিশোরগঞ্জের ভৈরবে টানা ৪০ দিন জামাতে নামায পড়ায় বাইসাইকেল উপহার পেল চার শিশু-কিশোর। আজ শুক্রবার জুম’আর নামায শেষে এই উপহার চার শিশু-কিশোরের হাতে তুলে দেয়া হয়। ২৫ জন শিশু-কিশোরের মধ্যে চারজন বাইসাইকেল উপহার পেয়ে মহা তারা। একই সঙ্গে আনন্দিত তাদের অভিভাবকরাও।
জানাগেছে, পৌর শহরের চন্ডিবের উত্তরপাড়া মহল্লার শিশু-কিশোরদের নামাযে উদ্বুদ্ধ করতে জনপ্রতি উপহার হিসেবে একটি করে বাইসাইকেল দেবার ঘোষণা দেন একই মহল্লার মো. সাগর মিয়া। তিনি পেশায় একজন (জ্বালানি তেল সরবরাহকারী) ট্যাঙ্ক লড়ি চালক। যারা একটানা ৪০ দিন মহল্লার মসজিদে এসে তাকবীরে তাহরীমার সঙ্গে জামাতে নামায পড়বে তাদেরকে একটি করে বাইসাইকেল উপহার দেয়া হবে। ফলে কামাল সরকার বাড়িসহ মহল্লার ২৫ জন শিশু-কিশোর মসজিদের খতিবের কাছে নাম লেখান। অবশেষে ২৫ জনের মধ্যে মাত্র চারজন শিশু-কিশোর টানা ৪০দিন জামাতের সঙ্গে নামায পড়তে সক্ষম হয়। তারা হলেন, আলফি, মেরাজুল, প্রভাত ও একরামুল। একই সঙ্গে বাকী ২১জন শিশু-কিশোরদেরও শান্তনা পুরস্কার হিসেবে জগ ও মগ উপহার দেয়া হয়।
বাইসাইকেল বিতরণের সময় উপস্থিত ছিলেন, কামাল সরকার বাড়ি জামে মসজিদের সভাপতি ও বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী আলহাজ্ব মো. আমিনুল ইসলাম, উক্ত জামে মসজিদের খতিব হযরত মাওলানা মুফতি ইসমাঈল হোসেন জেহাদী, মসজিদ কমিটির সহ-সভাপতি হাজী মো. মাসুদ মিয়া, হাজী মো. নরুল হক মাস্টার, কামাল সরকার, ছগির আহমেদ ও তপন মিয়া প্রমুখ। এছাড়াও অনুষ্ঠানটি সার্বিক পরিচালনা করেন সাংবাদিক খায়রুল ইসলাম। তাছাড়া বাইসাইকেল বিতরণের আগে সংক্ষিপ্ত আলোচনা সভায় বক্তারা, এই উদ্যোগের ভূয়সী প্রসংশা করেন। ব্যক্তি উদ্যোগে ভবিষ্যতেও মহল্লার শিশু-কিশোরদের নামাযে আগ্রহী করে তুলতে এই কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলেও জানান ট্যাঙ্ক লড়ি চালক সাগর মিয়া।

Print Friendly and PDF

ফেইসবুকে আমরা