এই মাত্র পাওয়া :

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৪ মার্চ ২০২১

যথাযোগ্য মর্যাদায় রাবিতে মহান শিক্ষক দিবস পালিত

বিভাগ : শিক্ষা প্রকাশের সময় :১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ৪:৪৬ : অপরাহ্ণ

রাবি প্রতিনিধি :

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) যথাযোগ্য মর্যাদায় মহান শিক্ষক দিবস পালিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) সকাল সাড়ে সাতটায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন শহীদ ড. জোহার সমাধি ও জোহা স্মৃতিফলকে পুস্পস্তবক অর্পণ করেন। এদিন সকাল ১০টায় শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ সিনেট ভবনে ড. জোহা স্মরণে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় প্রধান আলোচকের বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের সাবেক শিক্ষক অধ্যাপক সনৎ কুমার সাহা বলেন, স্বাধীনতার ৫০ বছরেও আমরা ড. শামসুজ্জোহার জাতীয় স্বীকৃতি পাইনি। কারণ আমরা এই দিনটিকে জাতীয়ভাবে জানাতে ব্যর্থ হয়েছি। কিন্তু ঐদিন তিনি জীবন না দিলে হয়তো সেদিনের গণ আন্দোলন গণঅভ্যূত্থানে রূপ নিত না। সেদিন তিনি নিজের জীবন দেয়ার জন্য সেখানে দাঁড়াননি। তিনি পাকিস্তানী বাহিনির হাত থেকে নিজের ছাত্রদের রক্ষা করার জন্য সেখানে দাঁড়িয়েছিলেন। কিন্তু তিনি জানতেন না সেই দিনটির জন্য তিনি চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবেন। নিজের ছাত্রদের জন্য মূল্যবান জীবন উৎসর্গ করে সেখানে এক অনির্বাণ শিখা স্থাপন করেছেন।

সনৎ কুমার সাহা বলেন, ড. জোহা শিক্ষক হিসেবে কতটা শিক্ষার্থী বান্ধব ছিলেন তার কর্মকাণ্ড দেখেই বোঝা যায়। তিনি শিক্ষার্থীদের নিয়ে সবার আগে খেলার মাঠে উপস্থিত হতেন। ক্রিকেটটা তিনি একটু বেশি পছন্দ করতেন। ব্যাট, প্যাড নিয়ে সবার আগে খেলার মাঠে উপস্থিত হতেন।

তিনি আরও বলেন, ড. জোহার পরিবার ছিল একটা উদ্বাস্তু পরিবার। পাকিস্তানে তাদের পরিবারটি অনেক কিছু থেকে বঞ্চিত ছিল। ৬ ভাই বোনের মধ্যে তার ২ বোন ছিল দৃষ্টি প্রতিবন্ধী। এরকম প্রতিকূল এক পরিবার থেকে তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরের দায়িত্ব পালন করেন এবং নিজের পরিবারের কথা চিন্তা না করে ছাত্রদের জন্য জীবন উৎসর্গ করেছেন। কিন্তু দুঃখের বিষয় তার পরিবারের সাথে এখন আমাদের বিশ^বিদ্যালয়ের কোন সম্পর্ক নেই।

আলোচনা সভায় বিশ^বিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহানের সভাপতিত্বে আরও উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা ও চৌধুরী মো. জাকারিয়া, রেজিস্ট্রার অধ্যাপক আব্দুস সালামসহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক শিক্ষার্থীরা।



Print Friendly and PDF

ফেইসবুকে আমরা