ঢাকা, বুধবার ৭ ডিসেম্বর ২০২২, ২২শে অগ্রহায়ণ ১৪২৯

অনিয়মের নিউজ করায় সাংবাদিককে হত্যার হুমকি

বালিয়াডাঙ্গী (ঠাকুরগাঁও) প্রতিনিধি: | প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার ২৪ নভেম্বর ২০২২ ০৬:৫৮:০০ অপরাহ্ন | দেশের খবর



ঠাকুরগাঁওয়ের বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার একটি রাস্তা সংস্কারে অনিয়মের সংবাদ প্রকাশের জেরে সাংবাদিক আল মামুন জীবনকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও হত্যার হুমকি দিয়েছেন আসাদুজ্জামান লাবলু নামে এক ঠিকাদার। এ সময় তাঁর স্ত্রীর চরিত্র নিয়ে বাজে মন্তব্য করেছেন। এ ঘটনার পর বালিয়াডাঙ্গী থানায় লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ওই সাংবাদিক।

বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) দুপুরে বালিয়াডাঙ্গী লাহিড়ী সড়কের পুরাতন মুক্তিযোদ্ধা অফিসের পাশেই একটি খাবার হোটেলে এ ঘটনা ঘটে। ঠিকাদার আসাদুজ্জামান লাবলুর সাথে আরও দুজন ছিল।

সাংবাদিক আল মামুন জীবন দৈনিক আজকের পত্রিকার বালিয়াডাঙ্গী প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করছেন। তিনি ঠাকুরগাঁও রিপোর্টার্স ইউনিটির কার্যকরী সদস্য।
সাংবাদিক আল মামুন জীবন বলেন, দুপুরে হোটেলে খাওয়ার সময় ০১৭১৫১৩৮০৮৭ নম্বরে ফোন করে আমার স্ত্রীর কথা জিজ্ঞাসা করে। এরপরে স্ত্রীর চরিত্র নিয়ে বাজে মন্তব্য করে বলেন যে, নিজের বাড়ীর খোঁজ রাখেন না, অন্যজনের খবর নিয়ে বেড়াচ্ছেন। এরপরে পরিচয় জানতে চেয়ে আমি হোটেলে ভাত খাচ্ছি। মোবাইলে হোটেলের ঠিকানা দিলে সেখানে উপস্থিত হয় ঠিকাদার ও তার সাথে আরও দুজন ব্যক্তি। সেখানে সাংবাদিকদের স্ত্রীকে নানা অশ্লীল মন্তব্যসহ ঠাকুরগাঁও আসলে তোমাকে দেখে নিবো, আমার পিছনে লাগছো, আমাকে চিনো না।

এরপরে তার নিকট রেগে যাওয়ার কারণ জানতে চাইলে অশ্লীল ভাষায় গালিগাল ও মারধর করতে এগিয়ে আসে। উপস্থিত লোকজন এগিয়ে এলে ঠিকাদারের লোকজন ঘটনাস্থল থেকে চলে যায়।

এর আগে বালিয়াডাঙ্গী উপজেলার চাড়োল ইউনিয়নের লাহিড়ী বাজার থেকে পাড়িয়া ইউনিয়নের পাড়িয়া বাজার পর্যন্ত ৫.১ কিলোমিটার পাকা রাস্তা সংস্কারকাজে স্থানীয়রা অনিয়মের অভিযোগ করলে 'নিম্নমানের কাজ বন্ধের চেষ্টায় ঠিকাদার-স্থানীয়দের হাতাহাতি' শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। সেই সংবাদ প্রকাশের জেরে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে ওই সাংবাদিকের স্ত্রীকে নিয়ে অশ্লীল মন্তব্য ও দেখে নেওয়ার হুমকি দেয়।

অভিযোগ প্রসংগে ঠিকাদার আসাদুজ্জামান লাবলু জানান, বর্তমানে জিনিসপত্রের দাম অনেক বেড়েছে। আর সাংবাদিকরা শুধু আমার কাজগুলো  দেখছে অন্য ঠিকাদারের কাজে অনিয়ম হলেও তাদের চোখে পড়ে না। তাই রাগে এমন ঘটনা ঘটেছে।

ঠাকুরগাঁও এলজিইডির নির্বাহী প্রকৌশলী শাহারুল আলম মন্ডল আলম বলেন, কারো সাথে এমন আচরণ করা মোটেই ঠিক হয়নি। আমি খোঁজ নিবো। এ ঘটনায় তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছেন ঠাকুরগাঁওয়ে কর্মরত প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিকরা।

এ বিষয়ে ঠাকুরগাঁও রিপোর্টার্স ইউনিটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রেজাউল প্রধান বলেন, এ ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সেই সাথে ঠাকুরগাঁও এলজিইডির কর্মকর্তারা ওই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানের করা কাজগুলোর অনিয়ম তদন্ত করে লাইসেন্স বাতিলের ব্যবস্থা নিবেন।

এ ব্যাপারে বালিয়াডাঙ্গী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খায়রুল আনাম বলেন, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।