ঢাকা, মঙ্গলবার ২৫ জানুয়ারী ২০২২, ১২ই মাঘ ১৪২৮

ভিপি মুছার হাফ ডজন পরিকল্পনা

জুবের আহমদ, ওসমানীনগর: | প্রকাশের সময় : শুক্রবার ১৪ জানুয়ারী ২০২২ ০৪:৫২:০০ অপরাহ্ন | সিলেট প্রতিদিন

সিলেট জেলার সাদিপুর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী সাহেদ আহমদ ভিপি মুছা এলাকার উন্নয়নে হাফ ডজন পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন। শুক্রবার প্রতীক বরাদ্দ পেয়েই পরিকল্পিত ও সুষম উন্নয়নের কথা জানান তিনি।  

 

ভিপি মুছা বলেন, জননেত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশের মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে ক্লান্তিহীন কাজ করে যাচ্ছেন। দেশকে এগিয়ে নিয়েছেন অনেক অনেক। আমিও ওই উন্নয়নের একজন সদস্য হতে চাই তৃণমূল কর্মী হিসেবে। 

 

চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলে প্রথম কাজ কী হবে জানতে চাইলে ভিপি মুছা বলেন, পরিকল্পিত ও সুষম উন্নয়ন উপহার দেব এলাকাবাসীকে।

 

তিনি বলেন, স্বাস্থ্যসেবাকে বর্তমান সরকার খুবই গুরুত্ব দিয়েছে। সাদিপুর ইউনিয়নের প্রতিটি ঘরে ঘরে স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দেয়ার জন্যে আমার বিশেষ পরিকল্পনা রয়েছে। বিশেষ করে খেটে খাওয়া মানুষগুলো যাতে স্বাস্থ্যসেবা নির্বিঘ্নে পেতে পারেন সেদিকে সর্বোচ্চ নজর দেয়া হবে। 

 

ভিপি মুছা বলেন, শিক্ষার দিক দিয়ে অনেক পিছিয়ে রয়েছে সাদিপুর ইউনিয়নের প্রত্যন্ত এলাকার জনগোষ্ঠী। আমার পরিকল্পনায় রয়েছে পুরো ইউনিয়নের জনগোষ্ঠীকে সুশিক্ষিত করে তুলতে সুষম পদক্ষেপ। প্রতিটি ঘরে শতভাগ শিক্ষার আলো পৌঁছে দেয়ার সব ধরণের পদক্ষেপ নেয়া হবে। 

 

বাসস্থানের ব্যাপারে বিশেষ পরিকল্পনা রয়েছে ভিপি মুছার। তিনি বলেন, সাদিপুর ইউনিয়ন একটি সমৃদ্ধ অঞ্চল। তারপরও প্রত্যন্ত এলাকার অনেক পরিবার আছেন অনেকটা গৃহহীন অবস্থায়। গৃহহীনদের আবাসন ব্যবস্থা করে দেয়ার পরিকল্পনাও রয়েছে। এছাড়া স্যানিটেশন শতভাগ নিশ্চিত করা হবে। কেউ যাতে স্যানিটেশন ব্যবস্থার বাইরে না থাকে সেব্যাপারে পদক্ষেপ নেয়া হবে। 

 

বেকার সমস্যার সমাধান করারও পরিকল্পনা রয়েছে ভিপি মুছার। তিনি বলেন, এই ইউনিয়নে বিভিন্ন পর্যায়ে উল্লেখযোগ্য বেকার আছেন। বেকার জনগোষ্ঠীর কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে বিশেষ পরিকল্পনা রয়েছে। 

 

ভিপি মুছা বলেন, সাদিপুর ইউনিয়নকে আধুনিক হিসেবে গড়ে তুলতে রয়েছে পরিকল্পনা। এলাকার সম্মানিত ভোটারদের কাছে ইতোমধ্যে তাকে নিয়ে আগ্রহ সৃষ্টি হয়েছে জানিয়ে ভিপি মুছা বলেন বিজয়ের ব্যাপারে তিনি শতভাগ আশাবাদি। 

 

ওসমানীনগর উপজেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের সাধারণ সম্পাদক সেলিম রেজা জানান প্রতীক বরাদ্দ পাওয়ার পর শুক্রবার বাদ আসর তাজপুরের হযরত সৈয়দ তাজউদ্দিন (রহ.) এর মাজার জেয়ারত করে নৌকার আনুষ্ঠানিক প্রচারণা শুরু হয়।