ঢাকা, মঙ্গলবার ৫ মার্চ ২০২৪, ২২শে ফাল্গুন ১৪৩০

ভোট দিয়ে যা বললেন মেয়রপ্রার্থী জায়েদা

নিজস্ব প্রতিবেদক : | প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার ২৫ মে ২০২৩ ১১:০১:০০ পূর্বাহ্ন | জাতীয়

ঢাকা: ভোট দিয়েছেন গাজীপুর সিটি করপোরেশনের আলোচিত মেয়রপ্রার্থী জায়েদা খাতুন ও তার ছেলে সাবেক মেয়র জাহাঙ্গীর আলম।  

বৃহস্পতিবার (২৫ মে) সকাল ১০টার সময় গাজীপুর সিটি করপোরেশনের ৩০ নম্বর ওয়ার্ডের কানাইয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে তারা ভোট দেন।

 

 

 

টেবিল ঘড়ি মার্কার প্রার্থী জায়েদা খাতুন বলেন, আমি জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। আপনারা সবাই ভোট কেন্দ্রে এসে ভোট দিন৷ ইভিএম নিয়ে আমার কোনো অভিযোগ নেই। ভোটকেন্দ্রগুলোর পরিবেশ এখন পর্যন্ত ভালো আছে৷ এসব নিয়ে আমার কোন অভিযোগ নেই।

ভোট প্রদান শেষে সাংবাদিকদের সামনে তিনি এ কথা বলেন।

আর মেয়রপ্রার্থী জায়েদা খাতুনের নির্বাচনী প্রধান সমন্বয়কারী সাবেক মেয়র জাহাঙ্গীর আলম বলেন,  ৪৮০ কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ চলছে। কিছু কেন্দ্রে এজেন্টদের বের করে দেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে, তবে এতে কিছু যায় আসে না। মা, ছেলে ও গাজীপুরবাসী ঐক্যবদ্ধ হয়েছে আমার মা জায়েদা খাতুনকে ভোট দিতে। বিকাল ৪ টা পর্যন্তই যেন ভোটগ্রহণ সুষ্ঠু হয়। কোনভাবেই যেন সিসি ক্যামেরা ও ইভিএম মেশিন টেম্পারিং করা না হয়।  

তিনি আরও বলেন, সরকার ও নির্বাচন সুষ্ঠু ভোটের যে প্রতিশ্রুতি দিয়েছি তা শেষ পর্যন্ত দেখব, আমরা ভোটের মাঠে আছি। সর্বশেষ পর্যন্ত দেখব কোথাও কোন কারচুপি হয়েছে কী না! যদি সুষ্ঠু হয় তবে আমরা ভোটের ফলকে স্বাগত জানাব এবং ভালো ভোটের জন্যে সবাইকে ধন্যবাদ দেব। আর কোন অনিয়ম হলে গাজীপুরবাসী তা মেনে নেবে না। এখন পর্যন্ত যে ভোট হয়েছে তাতে আমরা সন্তুষ্ট।  

ভোটারদের ভোট কেন্দ্রে আসার অনুরোধ করে জাহাঙ্গীর বলেন, আপনারা কেন্দ্রে এসে ভোট দেন। এই শহর আপনাদের, ভোটের মালিক আপনারা। কোন পেশি শক্তি যেন ভোট নষ্ট না করতে পারে। জনগণ ঐক্যবদ্ধ হলে কেউ বাঁধা দিয়ে ভোট নষ্ট করতে পারবে না। রাতে তারা এজেন্টদের তাতে কিছু যায় আসে না। আমাদের সকল এজেন্ট কেন্দ্রে গেছে, কিছু এজেন্টকে বের করে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে। কিন্তু আমাদের এজেন্ট তারপরও কেন্দ্রে ঢুকেছে। টঙ্গীতে কিছু জায়গায় এটা করেছে। আমরা আরও তথ্য নিচ্ছি।  

নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ৮ প্রার্থী হলেন হলেন- নৌকা প্রতীকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. আজমত উল্লা খান, লাঙ্গল প্রতীকে জাতীয় পার্টির এমএম নিয়াজ উদ্দিন, হাতপাখা প্রতীকে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের গাজী আতাউর রহমান, মাছ প্রতীকে গণফ্রন্টের প্রার্থী আতিকুল ইসলাম, গোলাপ ফুল প্রতীকে জাকের পার্টির মো. রাজু আহাম্মেদ। এছাড়াও স্বতন্ত্র থেকে মেয়র পদে টেবিল ঘড়ি প্রতীকে জায়েদা খাতুন (সাবেক মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের মা), ঘোড়া প্রতীকে মো. হারুন-অর-রশীদ ও হাতি প্রতীকে সরকার শাহনূর ইসলাম প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

প্রসঙ্গত, ৩২৯ দশমিক ৯০ বর্গকিলোমিটার আয়তনের গাজীপুর সিটি করপোরেশনের প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ২০১৩ সালের ৬ জুলাই। দ্বিতীয় সিটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ২০১৮ সালের ২৬ জুন সিটি নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়।