ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০২৪, ৮ই জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

ফরিদপুরে পাওনা টাকা চাওয়ায় মাথায় আঘাত,১৪ দিন পরে মৃত্যু

নাজমুল হাসান নিরব : | প্রকাশের সময় : বৃহস্পতিবার ২৫ মে ২০২৩ ১০:১৮:০০ অপরাহ্ন | দেশের খবর

 

ফরিদপুরের চরভদ্রাস পাওনা টাকা চাওয়ায়  স্বপন শেখের (২৮) মাথায়  সুজন নামের এক ব্যক্তি আঘাত করে। তার পরে স্থানীয় হাসপাতাল থেকে ঢাকা মেডিকেলে স্থানান্ততর করা হয়। তার কপালের হাড় ভেঙ্গে আট টুকরো হয়ে যায়।

বৃহস্পতিবার (২৫ মে) সকাল ১০টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ১৪দিন আইসিউতে চিকিৎসাধীন থাকার পর তার মৃত্যু ঘটে। তবে মাথায় আঘাত করা আসামী সুজন এখনও পলাতক রয়েছে।

মৃত স্বপন চরভদ্রাসনের সদর ইউনিয়নের আব্দুল শিকদারের ডাঙ্গী গ্রামের শেখ জামালের তৃতীয় পুত্র। সে চুক্তি ভিত্তিক শ্রমিকের কাজ করতো।

স্বপনের বড় ভাই সেলিম শেখ জানান, গত ১১ মে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে বি এস ডাঙ্গি গ্রামের আদর্শ স্কুল রোডে ফার্নিচারের দোকানদার সুজনের কাছে গিয়ে পাওনা টাকা চাইলে স্বপনের মাথায় কাঠের বাটাম দিয়ে আঘাত করে। এরপর ১৩দিন আইসিউতে চিকিৎসাধীন থাকার পর স্বপন মারা যায়।
 
তিনি আরও জানান, সুজনের বাড়ী ফরিদপুর সদর উপজেলার মুন্সিবাজারের পিয়ারপুর এলাকায়। ঘটনার পর সুজন পালিয়ে যায়। পরের দিন ১২মে স্বপনের মামা হযরত আলী মুন্সি বাদী হয়ে চরভদ্রাসন থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। তবে সুজনকে এখনও আটক হয়নি।

মৃত স্বপনের স্ত্রী ও এক বছরের এক ছেলে রয়েছে। এদিকে স্বপনের মাথায় পাওনা টাকা চাওয়ায় আঘাত করার ঘটনায় এলাকার যুব সমাজ ওব্যাবসায়ীদের মধ্যে ব্যাপক চাঞ্চল্য তৈরী হয়েছে।তারা দ্রুত আসামী গ্রেফতার ও বিচারের দাবী জানিয়েছে।

এ ব্যাপারে চরভদ্রাসন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. সেলিম রেজা বলেন, সুজনকে গ্রেফতারের চেষ্টা করে যাচ্ছেন।খুব দ্রুতই তাকে গ্রেফতার করা হবে বলে তিনি জানিয়েছেন।